তাজা খবর:

ইবিতে ছাত্রদলের মিছিলে ছাত্রলীগের ধাওয়া আহত-৩                    রাজশাহীতে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দম্পতিসহ নিহত ৪                    গোবিন্দগঞ্জে কমিউনিটি ক্লিনিক নদী গর্ভে, স্বাস্থ্য সেবা ব্যাহত                    ৪ দিনের রিমান্ডে টিটু রায়                    সংখ্যালঘুদের ওপর হামলা পরিকল্পিত : সংস্কৃতিমন্ত্রী                    যশোরে উদ্ধারকৃত সিংহ-বাঘের শাবক গাজীপুর সাফারি পার্কে                    ‘রোহিঙ্গা ফিরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক মহল চাপ প্রয়োগ করতে পারে’                    পোরশায় আগাম শ্রম বিক্রয়ের ফাঁদে আটকে পড়েছে আদিবাসীদের জীবণ                    কোটি টাকা গচ্ছা: ইরিগেশন প্রজেক্ট কৃষকের গলার কাটা                    ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের আমুল পরিবর্তন হবে তিন মাসের মধ্যে                    
  • শনিবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৭, ৪ অগ্রাহায়ণ ১৪২৪

ভূমিকম্পের পূর্বাভাস দিবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

ভূমিকম্পের পূর্বাভাস দিবে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা

আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (AI) বা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা নিয়ে আজ বিশ্বজুড়ে মাতামাতি। হেন কোনো

চিংড়ির বহু গুণ

চিংড়ির বহু গুণ

চিংড়ি শুধু সুস্বাদু খাবারই নয়, এর বহু গুণও রয়েছে। কিন্তু অনেকেরই চিংড়ির এসব গুণের কথা

তরমুজের বীজ খেলে পাবেন এই বিস্ময়কর উপকারিতাগুলো!

তরমুজের বীজ খেলে পাবেন এই বিস্ময়কর উপকারিতাগুলো!

আচ্ছা কে আমাদের শিখিয়েছে বলুন তো এটা ভাল নয়, ওটা ভাল নয়!

মাংশের টুকরোত আল্লাহর নাম

মাংশের টুকরোত আল্লাহর নাম

কোন কাল্পনিক গল্প নয়, অবিশ্বাস্য হলেও সত্য পাবনার আটঘরিয়ায় কোরবানির মাংশের একটি টুকরোও

কোটি টাকা গচ্ছা: ইরিগেশন প্রজেক্ট কৃষকের গলার কাটা

এফএনএস (বরিশাল প্রতিবেদক)

11 Nov 2017   06:08:44 PM   Saturday BdST
A- A A+ Print this E-mail this
 কোটি টাকা গচ্ছা: ইরিগেশন প্রজেক্ট কৃষকের গলার কাটা

একই জমিতে একাধিকবার ধান চাষ আর মৎস্য চাষের সম্ভাবনা নিয়ে বরিশালের বিলাঞ্চলের সাধারণ মানুষের ভাগ্য বদলের জন্য স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে বিশ্ব ব্যাংক, এডিবি, নেদারল্যান্ড ও রাজস্ব খাতের ৪৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৪৪ বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে গ্রহণ করা সাতলা-বাগধা সেচ প্রকল্প এখন কৃষকের গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সংশ্লিষ্ট কতিপয় কর্মকর্তাদের অপরিকল্পিত প্রকল্প গ্রহণ ও নামকাওয়াস্তে তা বাস্তবায়নের কারণে কৃষকের ভাগ্য বদল না হলেও অপচয় আর লুটপাট হয়েছে সরকারের কয়েক কোটি টাকা।
বিশেষ অনুসন্ধানে জানা গেছে, দক্ষিণাঞ্চল তথা বৃহত্তর ফরিদপুরের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল বরিশালের গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, উজিরপুর, বানারীপাড়া ও গোপালগঞ্জের বিলাঞ্চলের কৃষক ও মৎস্যজীবিদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য তৎকালীন বন্যা নিয়ন্ত্রণ, পানি সেচ ও কৃষি মন্ত্রী শহীদ আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ১৯৭৩-৭৪ সালে ১৪৪ বর্গ কিলোমিটার এলাকা নিয়ে “বরিশাল ইরিগেশন এন্ড ল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট প্রজেক্ট” প্রকল্প গ্রহণ করেন। প্রকল্পের উদ্দেশ্য ছিলো একই জমির বহুমূখী ব্যবহার। যেমন, একই জমিতে দু’বার ধান চাষ ও পরবর্তীতে মাছ চাষ করে এলাকার অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করা। এ লক্ষ্যে বিশ্ব ব্যাংক, এডিবি, রাজস্ব খাত ও নেদারল্যান্ডের আর্থিক সহায়তায় ৪৩ কোটি টাকা প্রাথমিক ব্যয় বরাদ্দ ধরে প্রকল্পের কাজ শুরু করা হয়। এ প্রকল্পের আওতায় রয়েছেন অর্ধকোটিরও বেশী  কৃষক ও মৎস্যজীবি।
ওই সময়ে প্রকল্প বাস্তবায়নের সাথে সম্পৃক্ত আগৈলঝাড়া উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আইউব আলী মিয়া জানান, প্রথমদিকে প্রকল্পের নকশা অনুযায়ী কাজ শুরু করা হলেও ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভয়াল কাল রাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সাথে রব সেরনিয়াবাত শহীদ হন। এর ফলে প্রকল্পের কার্যক্রম স্থবির হয়ে পরে। পরবর্তীতে ওই প্রকল্পের নামকরণ হয় “বরিশাল ইরিগেশন প্রজেক্ট” (বিআইপি)। সে সময় পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রধান কার্যালয় থেকে অদৃশ্য কালো থাবায় বিলীন হয়ে যায় পূর্বের মূল নকশা। যার হদিস আজও মেলেনি।
তিনি আরও জানান, দ্বিতীয় বারের গ্রহণ করা প্রকল্প বিআইপিও সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা হয়নি। বিআইপি সঠিকভাবে বাস্তবায়িত হলেও খাদ্য শষ্যে বিলাঞ্চলে বড় ধরনের ইতিবাচক প্রভাব পরতো। কিন্তু রাজনৈতিক অদুরদর্শীতা ও পূর্ববর্তী সরকারের ওপর নেতিবাচক মনোভাব সর্বোপরি পানি উন্নয়ন বোর্ডের কিছু অসাধু কর্মকর্তা-কর্মচারীর কারনে দ্বিতীয়বার গ্রহণ করা বিআইপি প্রকল্প জনগণের জন্য অভিশাপ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
দীর্ঘ মেয়াদী এ প্রকল্পে পাউবো প্রকৌশলীদের অসৎ উদ্দেশ্য ও অদুরদর্শীতার কারণে পানি নিস্কাসনের জন্য বাঁধের বিভিন্নস্থানে নির্মিত স্লুইজ গেট, ইনলেট-আউটলেটগুলো নির্মানে সরকারের কোটি কোটি টাকা ব্যয় হলেও কৃষক ও মৎস্যজীবিসহ বন্যার আপদকালীন সময়ে নদীতে পানি নিস্কাসনের ব্যবস্থা না থাকায় সাধারণ জনগনের কোন উপকারেই আসেনি।
সূত্রমতে, জনস্বার্থে মুল প্রকল্পটি তিনটি পোল্ডারে ভাগ করা হয়। যে তিনটি পোল্ডারে ভাগ করে প্রথমপর্যায়ে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছিল সেগুলো ছিলো- গৌরনদী, আগৈলঝাড়া, কালকিনি উপজেলার ৭৩ বর্গ কিলোমিটার নিয়ে ১নং পোল্ডার। যারমধ্যে পয়সারহাট-রামশীল-চৌদ্দমেধা প্রকল্পের অবস্থান। ২নং পোল্ডারে আগৈলঝাড়া ও উজিরপুর উপজেলার সাথে বানারীপাড়ার একাংশ নিয়ে ২৯ বর্গ কিলোমিটার। ৩নং পোল্ডারে যুক্ত করা হয়েছিলো, উজিরপুর উপজেলার সাথে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া পর্যন্ত ৪২ বর্গ কিলোমিটার। সর্বমোট তিনটি পোল্ডারে ১৪৪ বর্গ কিলোমিটার প্রকল্পের আওতায় নিয়ে যোগাযোগ খাতের উন্নয়নের জন্য ৭২ বর্গ কিলোমিটার সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা রাখা হয়।
সূত্রে আরও জানা গেছে, অব্যবস্থাপনা ও তত্ত্বাবধানের অভাবে ২নং পোল্ডারের বাগধা থেকে সাতলা পর্যন্ত সাত কিলোমিটার এবং বরিশাল অংশের পয়সা থেকে সাতলা পশ্চিম পাড় নদীর অব্যাহত ভাঙ্গনে অত্যন্ত ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। কোন রকম জোড়াতালি দিয়ে চার দশক ধরে খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে সাতলা-বাগধা সেচ প্রকল্প। এ প্রকল্পের অভ্যন্তরে অব্যবস্থাপনায় নির্মান করা স্লুইজ গেট ও ইনলেট-আউটলেটগুলো দিয়ে শুস্ক মৌসুমে পানি সেচ দেয়া ও বর্ষা মৌসুমে পানি নিস্কাসন হয়না। ফলে শুস্ক মৌসুমে সেচ সমস্যা ও বর্ষা মৌসুমে জলাবদ্ধতা তৈরি হয়ে ফসল উৎপাদন চরমভাবে ব্যহত হচ্ছে। দায়সারাভাবে আপদকালীন সময়ে কোন রকম মেরামতের মাধ্যমে খুড়িয়ে চলছে বর্তমানে প্রকল্পের কাজ। দ্বিতীয় দফায় গ্রহণ করা “বরিশাল ইরিগেশন প্রজেক্ট” বিআইপিও সম্পূর্ন রুপে বাস্তবায়ন করা হয়নি।
এরইমধ্যে সর্বশেষ প্রকল্পের নামকরণ করা হয় “কোষ্টাল এ্যামব্যাকমেন্ট প্রজেক্ট” বা সিইপি। কবে, কখন, কিভাবে এই প্রকল্পের নামকরণ করা হয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের স্বয়ং কর্মকর্তারাই তা জানেন না। কোন রকম আউটপুট ছাড়াই প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে বলে সংশ্লি¬ষ্ট প্রকল্প এলাকার বাসিন্দা ও প্রথম পর্যায়ের (বিআইএলএএমপি) প্রকল্পের সুপারিশকারীদের অন্যতম মুক্তিযোদ্ধা আইউব আলী মিয়া উল্লেখ করেন।
অনুসন্ধানে আরও জানা গেছে, পাউবো’র অফিস ব্যবস্থাপনা ও তাদের নৈতিকতা প্রশ্নাতীত। উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী, সহকারী প্রকৌশলীসহ পাউবো’র কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দায়িত্বে রয়েছে চরম অবহেলা। গৌরনদী অফিসে কর্মকর্তারা না বসায় মাদকাসক্ত, জুয়ারী ও সন্ত্রাসীদের নিরাপদ আস্তানায় পরিণত হয়েছে অফিসটি। আগৈলঝাড়ার অফিসটি অনেক আগেই ভাড়া দেয়া হয়েছে। সাতলা অফিস ভাড়া দেয়ায় সেখানে গড়ে উঠেছে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। রামশীল স্লুইজ গেট দেখভাল করার জন্য নির্মিত ভবনটি জুয়ারী ও নারীদের সম্ভ্রমহানীর নিরাপদ স্থানে পরিণত হয়েছে বলে স্থানীয়রা অভিযোগ করেন।
গৌরনদী অফিস সূত্রে জানা গেছে, এখানে ২/৩ জন নিন্ম শ্রেনীর কর্মচারীরা থাকেন। অফিসের কর্মকর্তারা মাস শেষে খাতায় স্বাক্ষর করে বিল নিয়ে চলে যায়। সংশ্লিষ্ট নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা গেছে, পাউবো’র ১, ২ ও ৩নং পোল্ডারে সাতলা-বাগধা-রামশীল-কাফুলাবাড়ি প্রকল্পের অধীনে চারটি প্রকল্পে গত বছর প্রায় একশ’ কোটি টাকা ব্যয়ে অপরিকল্পিতভাবে নামেমাত্র কাজ করা হলেও জনগণের ভাগ্যে এতটুকু ইতিবাচক পরিবর্তন হয়নি। রামশীল স্লুইজ গেটের দায়িত্বে থাকা এসও নিখিল হালদার গেট পারাপারের সময় মৎস্যজীবি মাঝিমাল্লাদের কাছ থেকে অবৈধভাবে তার লোক দিয়ে নৌকা প্রতি ১০ থেকে ২৫ টাকা নির্ধারিত আদায় করছেন। কাজীরহাট-জঙ্গলপট্টি-গয়নাঘাটায় (গৌরনদী) দুই কোটি টাকা ব্যয়ে তিনটি স্লুইজ গেট নির্মিত হলেও সেচ কাজে জনগণ তাতে কোন সুফল পায়নি।
চাষীদের অভিযোগ, বিভিন্ন সরকারের সময় ক্ষমতাসীন নেতাদের বিত্তবান করা আর ঠিকাদার ও পাউবো’র বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাদের ভাগ্য উন্নয়নের জন্য পাউবো বিভিন্ন অযৌক্তিক প্রকল্প গ্রহণ করে নামেমাত্র বাস্তবায়ন করেছে। ফলে সরকারের কোটি কোটি টাকা লুটপাট ও অপচয় হচ্ছে। চাষীরা আরও জানান, অপরিকল্পিত ব্যবস্থাপনার জন্য প্রকল্পের অভ্যন্তরের খালগুলো মরে যাওয়ায় চাষাবাদে শুস্ক মৌসুমে পানির অভাবে হাজার হাজার হেক্টর জমিতে আশাতীত ফসল হচ্ছেনা। বেড়িবাঁধের পাশের জলাশয় গুলো সরকারী ভাবে লিজ না দিয়ে পাউবো’র অসাধু কর্মকর্তারা স্থানীয় প্রভাবশালীদের কাগজপত্র বিহীন লিজ দিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে লাখ লাখ টাকা। অফিস চত্বর এবং প্রকল্পের রাস্তায় বিভিন্ন প্রজাতের গাছ বিক্রি করে ওই কর্মকর্তারা ফুলে ফেঁপে উঠলেও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে রাষ্ট্রীয় সম্পদের। আর্থিকভাবে তারা লাভবান হলেও রাজস্ব আয় থেকে বঞ্চিত হচ্ছে সরকার।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
 
A- A A+ Print this E-mail this
আপনার পছন্দের এলাকার সংবাদ
পড়তে চাই:
Fairnews24.com, starting the journey from 2010, one of the most read bangla daily online newspaper worldwide. Fairnews24.com has the highest journalist among all the Bangladeshi newspapers. Fairnews24.com also has news service and providing hourly news to the highest number of online and print edition news media. Daily more then 1, 00,000 readers read Fairnews24.com online news. Fairnews24.com is considered to be the most influencing news service brand of Bangladesh. The online portal of Fairnews24.com (www.fairnews24.com) brings latest bangla news online on the go.
৪৮/১, উত্তর কমলাপুর, মতিঝিল, ঢাকা-১০০০
ফোন : +৮৮ ০২ ৯৩৩৫৭৬৪
E-mail: info@fns24.com
fnsbangla@gmail.com
Maintained by : fns24.net